প্রকৃতির প্রতিশোধ বলে একটা কথা আছে!

প্রকৃতির প্রতিশোধ বলে একটা কথা আছে!

আল্লাহপাক কাউকে বিনা অপরাধে শাস্তি দেন না।
মাঝে মাঝে তিনি পরীক্ষা নেন, যাকে আমরা শাস্তি ভাবি।

পরীক্ষা এবং শাস্তির মধ্যে পার্থক্য আছে।

পরীক্ষা হলো এমন পিরিয়ড, যখন আপনাকে কঠিন সময় পার করতে হবে নানা বিপদ আপদের মধ্য দিয়ে। কিছু দুর্লভ বস্তু (প্রকৃত বন্ধুত্ব, টাকা, সামাজিক মর্যাদা, স্বাভাবিক সুস্থতা) হারাতে পারেন। তবে এই পরীক্ষা সামলে নিতে পারলে পুরষ্কার অপেক্ষা করছে।

আর শাস্তি হলো সেই পিরিয়ড, যা আপনার কৃতকর্মের ফল হিসেবে আসে। এসময় আপনি এমন কিছু হারাবেন বা পাবেন, যার কোন বিকল্প বা ভর্তুকি নেই। যেমন দুরারোগ্য ব্যাধি, পিতা-মাতা-সন্তান-প্রিয়জনের অস্বাভাবিক বিচ্ছেদ (মৃত্যু), অঙ্গহানি এরকম অনেক কিছুই হতে পারে।
তবে এর ও একটা সুফল আছে, ইহকালে শাস্তি হয়ে গেলে পরকালে তার ভার কমে।

আবার কারো উপর আল্লাহপাক সন্তুষ্ট তা বোঝার উপায় একটাই, আপনি আরো বেশি সৎ ও বিনয়ী হবেন। আল্লাহর সন্তুষ্টিপ্রাপ্ত কেউ কখনো অসৎ হতে পারেনা।

আল্লাহপাক যা করেন সব আমাদের মঙ্গলের জন্য।
তিনি কি করবেন, কি করছেন এটা তাঁর চেয়ে ভালো কেউ জানেনা।

(সংগৃহিত)

পাত্রী চাই

লিস্টটা একটু ছোট করেই দিলাম।

আমার জন্য পাত্রী লাগবে।

তেমন বেশি কিছু চাইনা, খুবই সীমিত চাহিদা।
শুধু একটি সুন্দরী, সুশ্রী, নম্র, ভদ্র, মিষ্টি,
লাজুক, নামাজী, রোজাদার, ঈমানদার,
ধার্মিক, পর্দানশীল, কুরআনে হাফেজা,
ইবাদত-বন্দেগী করে।
ভালো রান্না করতে পারে,
পোলাও-কোর্মা-জর্দা- ফিরনি, পায়েস-হালুয়া-
সেমাই-সুজি, পুঁইশাক-কলমি শাক-পালং
শাক-ডাটা শাক-লাল শাক, পুরি-
সিঙ্গারা- বেগুনি-আলুর চপ- মোগলাই পরোটা,
শিককাবাব-শামি কাবাব-জালি কাবাব-সুতা
কাবাব- বটি কাবাব, চিকেন ভুনা-বিফ
ভুনা- মাটন ভুনা- তন্দুরী ফ্রাই,
কাচ্চি-তেহারী-খিচুড়ি-বিরিয়ানী,
খাসীর রেজালা আর মাঝে
মাঝে মুগের ডাল দিয়ে রুই মাছের মাথা
রান্না করতে পারে, পেস্তা বাদামের
শরবত বানাতে পারে, ফুলকপি আলু
আর ঝোল দিয়ে মুরগীর মাংস রান্না
করতে পারে। সেলাইয়ের কাজ জানে
ও পূর্ব অভিজ্ঞতা আছে, ইসলামী সংগীত জানে ও
গাইতে পারে, সংসারে মনোযোগী,
স্বামীপরায়ণ, সংসারপরায়ণ, শ্বশুর-
শ্বাশুরি পরায়ণ, শিশুপরায়ণ, ধর্মপরায়ণ,
পরহেজগার, শিক্ষিতা,ভালো ঘরের
ভালো, উচ্চ বংশমর্যাদাসম্পন্ন,
লোভ-লালসাহীন, অত্যন্ত সাধারণ, সহজ-সরল,
বুদ্ধিমতী, I.Q. ১০০ তে ১০০, বাংলা-
ইংরেজী-আরবী-ফারসী-ঊর্দু সব ভাষায়
সাবলীলভাবে সমানভাবে পারদর্শীতার
সাথে লিখতে-পড়তে ও কথা বলতে পারে।
বিশিষ্ট্য সাহাবিদের নাম না-দেখে ৬০ সেকেন্ডের ভিতরে
মুখস্থ বলতে পারে, বাজার- সদাই করতে
পারে, গায়ে ছোটো ছোটো তিল আছে,
হাসলে গালে টোল পড়ে, হাসিতে মুক্তা ঝড়ে,
ফর্সা-লম্বা,রূপবতী, গুণবতী, পূণ্যবতী,
স্বাস্থ্যবতী, সুস্বাস্থ্যের অধিকারী,
ভিশন সিক্স বাই সিক্স, ছোটবেলায়
সব রোগের বুস্টার ডোসসহ টিকা
নেওয়া আছে, পরিশ্রমী, কর্মঠ, অধ্যাবসায়ী
কষ্টসহিষ্ণু, সর্বসংসা, সাহসী, নির্ভীক,
অকুতোভয়, মিলিটারী ট্রেনিং প্রাপ্ত, কুংফু-
কারাতে-জুডো- মার্শাল আর্ট-
তাইকোয়ান্দো-জুজিতসুতে ব্ল্যাকবেল্ট
প্রাপ্ত, বিপদে-আপদে হাতে বাঁশ নিয়ে
রাত জেগে বাড়ি পাহারা দিতে পারে
যেন আমি নিশ্চিন্তে ঘুমুতে পারি,
নারিকেল গাছে চড়ে নারিকেল পাড়তে
জানে, মাঝ নদীতে নৌকা বেয়ে জাল
ফেলে মাছ ধরতে পারে, নিরীহ, নিষ্পাপ,
মাসুম, নাদান, সতীশুদ্ধ, কুমারী, ফুলের
মতো পবিত্র, কুসুমের মতো কোমল, পরমা
সুন্দরী, সীমাহীন রূপ- লাবণ্য-সৌন্দর্যের
অধিকারীণী, যার রূপে আগুন জ্বলে
অল্পের ভিতরে এমন
একটা মেয়ে হলেই চলবে আর
তেমন কোন গুন লাগবে নাহ—

সংগৃহিত